আমরা খুবই আনন্দিত: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

হেমানজিওমা রোগে আক্রান্ত শিশু মুক্তামনি এখন সুস্থ এবং ভালো আছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন- শত ব্যস্ততার মধ্যেও মুক্তামনির খোঁজ-খবর রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এটা খুবই বিস্ময়কর।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে শিশু মুক্তামনিকে দেখতে এসে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা খুবই আনন্দিত মুক্তামনির হাতের সব টিউমার অপারেশন কর‍া হয়েছে। আমাদের দক্ষ চিকিৎসকরা শুধু মক্তামনি নয় গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে কোমরে জোড়া লাগা শিশু তোফা-তহুরা, বিরল রোগে আক্রান্ত ‘ট্রি-ম্যান’ আবুল বাজনাদারসহ অনেক রোগীর চিকিৎসা করেছেন। সুস্থভাবে জীবন-যাপনের জন্য তাদের চিকিৎসা করে পরিবারের কাছে ফেরত দেওয়া হয়েছে। এজন্য আমাদের দক্ষ তরুণ চিকিৎসকসহ সব চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানাই।

ঢামেক এর বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সাজার্রি ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, ‘মুক্তামনির অপারেশনটি ছিল অত্যন্ত জটিল। আমরা অনেক কষ্ট করে তাকে আজকের এই অবস্থায় এনেছি। তার হাতের সব টিউমার অপসারণ করেছি। মুক্তামনি বর্তমানে স্টেবল থাকলেও সম্পূর্ণ ঝুঁকিমুক্ত নয়।’

আরও তিন থেকে চারটি অস্ত্রোপচার লাগতে পারে মুক্তামনির।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে নাসিরউদ্দিন, ঢামেকের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. খান আবুল কালাম আজাদ, বার্ন ইউনিটের বর্তমান পরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা.  আবুল কালাম আজাদ এবং মুক্তিমনির চিকিৎসায় গঠিত মেডিক্যাল বোর্ডের সদস্যরা।

মুক্তামনির বাবা মো. ইব্রাহিম হোসেন মেয়ের চিকিৎসার দায়িত্ব নেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।