২১জুলাই আসছে ‘কমরেড’

সাংবাদিকতা-রাজনীতি-পরিচালনা— তিনটি পেশাকেই কোথাও এক সূত্রে বেঁধে ফেললেন তিনি। সাংবাদিকতা ও রাজনীতির ময়দানে তিনি পরিচিত। এ বার হাতেখড়ি হল পরিচালনায়। সৌজন্যে তাঁর আসন্ন ছবি ‘কমরেড’। তিনি শঙ্কুদেব পণ্ডা।

আগামী ২১ জুলাই মুক্তি পাচ্ছে তাঁর প্রথম ছবি ‘কমরেড’।

সিঙ্গুর, নন্দীগ্রাম, জঙ্গলমহল, তাপসী মালিক, রাধারানি আড়ি— পশ্চিমবঙ্গের সাম্প্রতিক রাজনীতির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। আর তাকেই সেলুলয়েডে ধরেছেন শঙ্কুদেব। তাঁর দাবি, ‘‘এটা কোনও ডকুমেন্টারি নয়। সত্যি ঘটনার ওপর নির্ভর করে ছবিটা তৈরি করেছি। এমন সব ঘটনার কথা রয়েছে যা কিন্তু কোনও টেলিভিশন চ্যানেল দেখাতে পারবে না। ফলে কেউ যদি ভাবেন পরে টেলিভিশনে দেখবেন, অথবা সময়ের অভাবে যদি কারও হলে না দেখা হয় পরে আফশোস হবে। এই ছবি হলে গিয়ে দেখতেই হবে।’’

খরাজ মুখোপাধ্যায়, এনা সাহা, মৌবনি সরকার, ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়, সাহেব চট্টোপাধ্যায় প্রমুখের অভিনয় এই ছবিতে সমৃদ্ধ করেছে। একটি আইটেম নম্বরে দেখা যাবে মোনালিসাকে। বাণিজ্যিক চিন্তাভাবনা থেকেই কি ছবিতে আইটেম নম্বর রাখার পরিকল্পনা? পরিচালকের জবাব, ‘‘বাণিজ্য নয়। মোনালিসা বাঙালি মেয়ে। ও এখানে সুযোগ পায়নি। আর ছবির জন্যও গানটা দরকার ছিল।’’ ছবির সঙ্গীত পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছেন সুরজিত্ চট্টোপাধ্যায়। শান, আকৃতি কক্কর, নচিকেতার গান রয়েছে ছবিতে।

২১ জুলাই শাসক দলের কাছে একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন। পরিচালক নিজেও ওই দলের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। কিন্তু সারদা কাণ্ডে সিবিআইয়ের জেরা ও নারদ নিউজের স্টিং অপারেশনে তাঁর ছবি প্রকাশ্যে আসার পর দলের সঙ্গে দূরত্ব বাড়তে থাকে। ২১ জুলাই নিজের প্রথম ছবি রিলিজ করানোর পিছনে কি কোনও বিশেষ উদ্দেশ্য রয়েছে? শঙ্কুদেব বললেন, ‘‘না। তবে ওই দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভা রয়েছে বলে আমরা সকালে কোনও শো রাখছি না। গোটা দেশেই বিকেল চারটের পর থেকে শো শুরু হবে।’’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।