মাদকের কুফল সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করতে হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  মো. আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন,  আমরা আর কোনো ঐশী দেখতে চাই না। আমার সন্তানদের এই ভয়াবহতা থেকে রক্ষা করতে মাদকের মূল জায়গায় আঘাত করতে চাই।

শনিবার দুপুরে চট্টগ্রামের পতেঙ্গা র‌্যাব ৭ এর কার্যালয়ে আয়োজিত মাদকদ্রব্য ধ্বংস অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

মাদকের ভয়াল থাবা থেকে দেশের যুব সমাজকে রক্ষা করতে ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, মসজিদের ইমাম, সাংবাদিকসহ সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি বলেন, মাদক মানুষের মস্তিষ্ক নষ্ট করে। মাদকের কুফল সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করতে হবে। মাদক নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে ভিশন ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না।

মন্ত্রী আরো বলেন, এক সময় ভারত থেকে প্রচুর পরিমাণে ফেনসিডিল আসতো। আমাদের সীমান্ত নিয়ন্ত্রণের কারণে এখন তা অনেকাংশে কমে এসেছে। আমরা ভারতকে তাদের সীমান্ত এলাকার ফেনসিডিল কারখানাগুলো বন্ধ করে দিতে বলেছি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এখন মাদক হিসেবে ইয়াবা ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। বহনে সহজ হওয়ায় ইয়াবার ব্যাপকতা বাড়ছে। মিয়ানমার থেকে ইয়াবার প্রবেশ ঠেকাতে আমরা সেদেশের সরকারের সঙ্গে কথা বলছি। নাফ নদীতে টহল বাড়ানো হয়েছে। বিজিবি ও কোস্টগার্ডকে শক্তিশালী করা হচ্ছে। নাফ নদীর গহীন এলাকা নিয়ন্ত্রণে বিজিবিকে একটি হেলিকপ্টার দেওয়া হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে ১৭৮ কোটি ২৭ লাখ ৪৫ হাজার টাকার ইয়াবা, ৭১৮১ বোতল ফেনসিডিল, ২০০ বোতল বিদেশি মদ ও বিয়ার ও ২০০ কেজি গাঁজা ধ্বংস করা হয়।

এই সময় উপস্থিত ছিলেন ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, র‌্যাব ডিজি বেনজির আহমেদ, চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, সিএমপি কমিশনার ইকবাল বাহার, চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা, সিডি এ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, সংসদ সদস্য শামসুল হক চৌধুরী, আবদুল লতিফ, দিদারুল আলম প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।