সীতাকুণ্ডে অজ্ঞাত রোগে শিশুর মৃত্যু, বিস্তারিত জানা যাবে সোমবার

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে সোনাইছড়ি ত্রিপুরা পাড়ায় শিশুদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়া রোগের বিভিন্ন তথ্য ও আক্রান্ত রোগীদের কাছ থেকে বিভিন্ন নমুনা সংগ্রহ শেষে ঢাকায় ফিরেছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) প্রতিনিধি দল।

শনিবার (১৫ জুলাই) সকালে প্রতিনিধি দলটি ঢাকায় ফেরে।

সীতাকুণ্ড থেকে রোগের বিভিন্ন নমুনা  আজ ও আগামীকাল  ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করা হবে বলে জানিয়েছেন আইইডিসিআর-এর জ্যেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এএসএম আলমগীর জানান।

তিনি বলেন, বলেন, ‘কোন রোগে আক্রান্ত্র হয়ে সীতাকুণ্ডে শিশুদের মৃত্যু হয়েছে, সেটা কেন এবং কীসের সংক্রমণ এগুলোই মূলত জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। বিষয়টি দ্রুত বের করতে শনিবার ছুটির দিন হওয়া সত্ত্বেও আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

প্রাথমিকভাবে আপনারা কী মনে করছেন জানাতে চাইলে আইইডিসিআর-এর জ্যেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা আগে থেকেই কিছু বলতে চাই না। পরীক্ষার পর পুরো বিষয়টিই আনুষ্ঠনিকভাবে জানানো হবে।’

অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড এলাকার দুর্গম পাহাড়ে বসবাসকারী ত্রিপুরা গোষ্ঠীর ৯ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। একই ধরনের অসুস্থতায় আরও ৩৫ শিশুকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল ও বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে কী ধরনের রোগে এসব শিশুরা আক্রান্ত হয়েছে তা এখন পর্যন্ত সুনির্দিষ্ট করে জানাতে পারেননি চিকিৎসকরা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।