৪০ রানের দুর্দান্ত জয় দক্ষিণ আফ্রিকার

ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কাকে হোয়াটওয়াশ করলেই অস্ট্রেলিয়াকে টপকে ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে উঠে যাবে দক্ষিণ আফ্রিকা। সেই লক্ষ্যে আর একধাপ এগিয়ে গেল ডি ভিলিয়ার্সের দল। সিরিজের চতুর্থ ওয়ানডেতে ডু প্লেসির ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেলে দলকে এনে দিলেন ৪০ রানের দুর্দান্ত জয়।
টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি স্বাগতিকদের। শুরুতেই বিদায় নেন আমলা (১)। এরপর ডি কককে নিয়ে দলের হাল ধরেন ডু প্লেসি। দু’জনে মিলে গড়েন শত রানের জুটি। ব্যক্তিগত ৫৫ রান করে ডি কক বিদায় নিলে অধিনায়ক ডি ভিলিয়ার্সকে সঙ্গে নিয়ে নিজের অষ্টম সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে দলেক বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে নেন ডু প্লেসি।
এই দু’জনে মিলে গড়েন ১৩৭ রানের জুটি। ডি ভিলিয়ার্স তুলে নেন নিজের ৫০তম অর্ধশত। ব্যক্তিগত ৬৪ রানের সাজঘরে ফেরেন এই অধিনায়ক। এরপর ডুমিনি দ্রুত বিদায় নিলেও শেষ দিকে বেহারডিনকে নিয়ে ৭৪ রানের ঝড়ো জুটি গড়লে ৩৬৭ রানের বড় সংগ্রহ পায় প্রোটিয়ারা। ডু প্লেসি খেলেন ক্যারিয়ার সেরা ১৮৫ রানের ইনিংস। আর বেহারডিন ৩৬ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন।
পাহাড়সম রান তাড়া করতে নেমে ১৩৯ রানের দুর্দান্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার ডিকভেলা ও থারাঙ্গা। ডিকভেলা ৫৮ রান করে বিদায় নিলেও থারাঙ্গা তুলে নেন নিজের ক্যারিয়ারের ১৪তম সেঞ্চুরি।  ৯০ বলে ১১৯ রানের চমৎকার ইনিংস খেলে সাজঘরে ফেরেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসের অনুপস্থিতিতে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করা থারাঙ্গা।
এদিকে ২৩ রানের মধ্যে মেন্ডিস, থারাঙ্গার সঙ্গে বিদায় নেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভাও। ফলে ছোটোখাটো ধসে পড়ে অতিথিরা। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার ফিল্ডারদের ক্যাচ হাত ছাড়ার সুযোগ নিয়ে ৭৯ রানের দারুণ জুটিতে লঙ্কানদের আশা বাঁচিয়ে রাখেন বিরাক্কডি ও আসেলা গুনারত্নে। কিন্তু শেষটায় ঘুরে দাঁড়িয়ে ১১ বল আগেই লঙ্কানদের গুটিয়ে দেয় স্বাগতিকরা। মাত্র ২০ রানে শেষ ৬ উইকেট হারিয়ে আরেকটি হারের হতাশায় মাঠ ছাড়ে অতিথিরা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।