শিরোপা জিতে বার্সা-সেভিয়ার মৌসুম শুরুর হাতছানি স্পোর্টস ডেস্ক

গত কয়েক সপ্তাহের ‘অর্থহীন’ প্রীতি ম্যাচ ও কঠোর অনুশীলন শেষে স্পেনে ফিরছে আসল ফুটবল লড়াই। স্প্যানিশ সুপার কাপে শিরোপা জিতে নতুন মৌসুম শুরুর লক্ষ্যে রবিবার দিবাগত রাত ২টায় মুখোমুখি হচ্ছে বার্সেলোনা ও সেভিয়া।

নিয়ম অনুযায়ী লা লিগা ও কোপা দেল রে চ্যাম্পিয়নরা মুখোমুখি হয় এই সুপার কাপে। কিন্তু কোনও দল দুটি টুর্নামেন্টেই শিরোপা জিতলে কোপা দেল রের রানার্সআপ সুযোগ পায় লড়াইয়ে। গত মৌসুমে সেভিয়াকে ৫-০ গোলে হারিয়ে কোপার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বার্সেলোনা।

নতুন মৌসুমের পর্দা ওঠার লড়াইয়ে চিরচেনা দুই প্রতিপক্ষ। কিন্তু এবারের লড়াই হচ্ছে নতুন ধাঁচে। স্প্যানিশ সুপার কাপের ৩৬ বছরের ইতিহাসে প্রথমবার এক ম্যাচের ফাইনাল হতে যাচ্ছে এবার। ১৯৮২ সাল থেকে শুরু হয়ে গত বছর পর্যন্ত দুই লেগে নির্ধারণ করা হয়েছে চ্যাম্পিয়নদের।

তাছাড়া এবারই প্রথম স্পেনের বাইরে হচ্ছে এই লড়াই। মরক্কোর ইবনে বতুতা স্টেডিয়াম প্রস্তুত দুই স্প্যানিশ জায়ান্টের প্রতিদ্বন্দ্বিতা মঞ্চস্থ করতে।

কিন্তু ম্যাচ শুরুর ২৪ ঘণ্টা আগে স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের বিরুদ্ধে বার্সেলোনার পক্ষে যায় এমন নিয়ম চালুর অভিযোগ এনেছে সেভিয়া। আইনি লড়াই চালানোর ঘোষণা দিয়ে ম্যাচটি বয়কটের হুমকি দিয়েছে তারা। আগের নিয়মে ইউরোপের বাইরের তিন জন খেলোয়াড় খেলানোর কথা, কিন্তু এবার তার চেয়েও বেশি খেলোয়াড়কে খেলানো যাবে জানিয়েছে দেশটির শীর্ষ ফুটবল সংস্থা। এতে করে নতুন চুক্তি করা আর্থার মেলো, আর্তুরো ভিদাল ও মালকমকে খেলানোর সুযোগ পাবে বার্সা। কিন্তু হুট করে নিয়ম পাল্টানোয় বেঁকে বসেছে তাদের প্রতিপক্ষ।

যাই হোক, বার্সেলোনার বিপক্ষে কোপা হারের প্রতিশোধ নিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা পাওয়ার সুযোগ সেভিয়ার। তাই বাস্তবতা চিন্তা করে এই সুযোগ হারানোর মতো বোকামি হয়তো করবে না তারা। নিরপেক্ষ ভেন্যু বলে দুই দলই সমানে সমান থেকে লড়বে।

এই ম্যাচটি হতে যাচ্ছে ২০১৬ সালের পুনরাবৃত্তি। ওইবার দুই লেগে ৫-০ গোলের অগ্রগামিতায় জিতে সবশেষ ও ১২তম সুপার কাপ হাতে নিয়েছিল বার্সেলোনা। গতবার রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হেরে শিরোপা খোঁয়ায় তারা। এবার সেটা পুনরুদ্ধারের স্বপ্ন নিয়ে মাঠে নামছে তারা। একই সঙ্গে ‘ত্রিমুকুট’ হাতে নেওয়ার প্রত্যাশা বাঁচিয়ে রাখার লক্ষ্য কাতালান জায়ান্টদের। তাছাড়া এই ম্যাচ দিয়ে অধিনায়কত্ব শুরু হচ্ছে লিওনেল মেসির। নতুন দায়িত্বে সাফল্যে শুরু করার মিশন আর্জেন্টিনা অধিনায়কের।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।