প্রেমের টানে ভারতে বাংলাদেশি যুবতী!

ফেসবুকে ভারতীয় যুবক পরেশের প্রেমে পড়ে বাংলাদেশি যুবতী আয়েশা (ছদ্মনাম) তার প্রেমিককে খুঁজতে পাড়ি জমিয়েছেন দেশটিতে। কয়েক দফায় পরেশের (ছদ্মনাম) কাছে ধোঁকা খেয়ে তিনি আবার ছুটে গেছেন ভারতে। বর্তমানে অবস্থান করছেন আহমেদাবাদে। এরই মধ্যে দু’বার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। তাতে সফল হন নি। তবুও তিনি পরেশকে খুঁজে ফিরছেন।

এক অনিশ্চয়তায় আয়েশা অবস্থান করছেন আহমেদাবাদে। তার কাহিনী উঠে এসেছে ভারতের প্রভাবশালী পত্রিকা দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়ায়।

এতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রেমিক পরেশকে স্বামী হিসেবে পেতে, তার সঙ্গে সংসার করতে মরিয়া আয়েশা। এখন থেকে সাত বছর আগে ফেসবুকের মাধ্যমে পরেশের সঙ্গে পরিচয় হয় আয়েশার। তিনি বাংলাদেশের এক সম্ভ্রান্ত ও ধনী পরিবারের। পরেশের প্রেমে পড়ে তিনি ২০১৫ সালে আহমেদাবাদে গিয়েছিলেন একবার। সেখানে গিয়ে পরেশের বাড়িতে থাকেন ১৫ দিন। এ সময়টাতে গুরুত্বপূর্ণ কিছু ইস্যু উঠে আসে দু’জনের মধ্য। মনোমালিন্য দেখা দেয়। বিষয়টি গড়ায় পুলিশ পর্যন্ত। ওই সময় পরেশের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেন আয়েশা। তারপর ফিরে আসেন বাংলাদেশে।

প্রতিবেদেন আরও বলা হয়, এ ঘটনার তিন বছর পরে ফেসবুকে তাদের আবার যোগাযোগ হয় ২০১৮ সালে। আবার তাদের পুরনো প্রেমের শুরু। তারই ধারাবাহিকতায় পরেশের সাক্ষাত পেতে ভারতে ফিরে যান আয়েশা। তার বিরুদ্ধে পুলিশে যে অভিযোগ করেছিলেন তা প্রত্যাহার করে নেন। এ সময় দু’জন দু’জনকে নতুন করে ভালবাসার সিদ্ধান্ত নেন। পরেশ প্রতিশ্রুতি দেন তিনি বিয়ে করবেন আয়েশাকে। এমন প্রতিশ্রুতি দিয়ে তিনি তাকে ফেরত পাঠান বাংলাদেশে। কিন্তু এর পরই দিন যত যেতে থাকে পরেশ নিজেকে দূরে সরাতে থাকেন। আস্তে আস্তে তিনি আয়েশার সঙ্গে কথা বলা বন্ধ করে দেন। সামাজিক যোগাযোগ মিডিয়ায় আয়েশাকে ব্লক করে দেন। উপায় না দেখে আয়েশা আবার ছুটে যান আহমেদাবাদে। কিন্তু এবার পরেশের কোনো নাম-গন্ধও পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি কোথায় আছেন কেউ তা বলতেও পারছেন না।সূত্র: সময় টিভি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।