পাকিস্তানে হামলার দায় স্বীকার করলো আইএস

পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে ভয়াবহ বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১২৮ জনে দাঁড়িয়েছে। এদের মধ্যে নওয়াবজাদা সিরাজ রাইসানি নামের দেশটির জাতীয় নির্বাচনের একজন প্রার্থীও রয়েছেন। গতকাল শুক্রবার বিকেলে বেলুচিস্তানের রাজধানী কোয়েটার কাছে মাসটাং জেলার এই আত্মঘাতী বোমা হামলা হয়। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন দুই শতাধিক মানুষ।

এটি ২০১৪ সালে পেশোয়ারের আর্মি পাবলিক স্কুলে বিস্ফোরণের পর পাকিস্তানের সবচেয়ে বড় বিস্ফোরণের ঘটনা। জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) এই হামলার দায় স্বীকার করেছে বলে তাদের ওয়েবসাইট আমাক নিউজে জানানো হয়েছে।

নিহত নওয়াবজাদা সিরাজ রাইসানি সেখানকার প্রাদেশিক আসনে (পিবি-৩৫) বেলুচিস্তান আওয়ামি পার্টির (বিএপি) হয়ে লড়ছেন।

বেলুচিস্তানের সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক আসলাম তারিন ও প্রাদেশিক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আগা ওমর বাঙ্গুলজাই এটি আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ বলে নিশ্চিত করেছেন।

আসলাম তারিন বলেন, রাজনৈতিক সভা চলার সময় সভাস্থলের মাঝখানে আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এ হামলায় ৮ থেকে ১০ কেজি ওজনের বিস্ফোরক ব্যবহার করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে  হামলাকারীকে শনাক্ত করা যায়নি।

প্রাদেশিক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফয়েজ কাকর জানান, আহত ব্যক্তিদের কোয়েটা সিভিল হাসপাতাল, বোলান মেডিকেল কমপ্লেক্স ও কোয়েটা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। এসব হাসপাতালে ৪০টির মতো লাশ রয়েছে।

২৫ জুলাই পাকিস্তানের জাতীয় ও প্রাদেশিক নির্বাচন। এ নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশটিতে সহিংসতা বেড়েই চলেছে। গত ১০ জুলাই পেশোয়ারে অপর এক আত্মঘাতী বোমা হামলায় আওয়ামি ন্যাশনাল পার্টির (এএনপি) নেতা হারুন বিলোরসহ ১৯ জন নিহত হন। পরে তাহরিক-ই-তালিবান (টিটিপি) ওই হামলার দায় স্বীকার করে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।