আবেগপ্রবণ জাতি ও ক্রিকেট

বাংলাদেশের মানুষ খুব আবেগপ্রবণ, এটা নিয়ে কোনো সন্দেহ নাই। আজকে একটি খেলায় জয়ের ভূমিকা রাখায় একজনকে খেলোয়াড়কে বীর বানিয়ে দেওয়া হচ্ছে, ঠিক কালকে সেই একই খেলোয়াড়কে খারাপ খেলার জন্য সবজি বিক্রেতা বানিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

আবেগপ্রবণ হলে সমস্যা নেই, সমস্যা অপরাধ প্রবণ হলে। সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশ ক্রিকেটে একটি নাম নয় একটি নক্ষত্র।

বাংলাদেশকে সেই বহু কিছু দিয়েছে বিনিময়ে আমরা তাকে ভালবেসেছি। আফগান ম্যাচে সেই কিছু দিতে পারেনি। আমরা আমাদের ভালবাসা ছুঁড়ে ফেলেছি। বাংলাদেশ সব সময় নিজের মাঠে খেলতে অভ্যস্ত। বাহিরে মাঠে খেলতে গেলে টাইগার টিমকে এডাপ্টেশন করতে হয়। এমন একটি মাঠে তারা খেলেছে যেখানে আগে খেলে নাই। মাঠ ও পরিবেশের সাপোর্ট ,এডাপ্টেশন এগুলো খেলায় জয় তৈরি করার জন্য দরকার।

খেলার সাথে আমাদের আত্মা মিশে আছে,কিন্তু এতটা বিশ্রীভাবে মিশে আছে তা ভাবতে অবাক লাগে। কারণ এখন আমরা উন্মুক্ত জাতি হচ্ছি। আমাদের মানসিকতা উন্মুক্ত হচ্ছে না। আপনাকে ক্রীড়া প্রেমী হতে হলে আগে মানতে হবে খেলা জয় পরাজয় আছে।

আপনি জয় নিয়ে উল্লাস করবেন এবং পরাজয় মেনে নিতে পারবেন না তাহলে আপনি আসলেই ক্রীড়া প্রেমী নন। আপনি একজন জুয়াড়ি। বাংলাদেশ আফগান সিরিজে বাংলাদেশ হেরেছে। এই জন্যে সাকিবকে গালি শুনতে শুনতে ওর চৌদ্দ গোষ্ঠী তার কৃতকর্মের জন্যে লজ্জিত হয়ে যাচ্ছে। কেনো?

একটি টিম যখন ধারাবাহিক হারে তখন তাদের উপর স্বয়ং বোর্ড থেকে চাপ দেওয়া হয়। প্রতিটি খেলোয়াড় জানে ১১ জনের স্কোয়াডে কেউ নাম বিক্রি করে বা কোটায় থাকে না। সবাই যোগ্যতার বলে থাকে। কেউ নিজ ইচ্ছায় খারাপ খেললে তার ব্যাপারে বোর্ড নিজেই সিদ্ধান্ত নিবে। কিন্তু আমাদের কেনো এভাবে গালি দিতে হচ্ছে? তাকে নিয়ে গান বানিয়ে ফেললাম! হুয়াট এ ট্যালেন্ট জাতি। সাকিব তুই অপরাধী, সাকিব তুই অপরাধী।

আপনাদের ট্যাক্সের টাকা ক্রিকেট বোর্ড চলে তাই তাদের কোনো আনন্দ বিনোদন থাকতে পারে না? তাদের অবসর সময়ে তারা সময়ের জনপ্রিয় গানটা সবাই মিলে গেয়েছিলো। অনেক বড় পাপ হয়ে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের। জাতি হিসাবে আপনাদের বিশ্লেষণ করার শব্দ নেই। সাকিব তুই নেতা! খবর রটেছিলো মাশরাফি সাকিব নেতা হবে! নির্বাচন করবে। আপনারা জাতি হিসেবে বড়ই এলিয়েন।খবর রটেছিলো তাতেই এত বিব্রত অবস্থা তৈরি করে দিলেন।

রাজনীতিতে আসার মাঝে নেগেটিভ দিক তো দেখছি না। মাশরাফি তো তার অঞ্চলে কাজ করছে।সেই ক্ষমতা পেলে আরো ভালো করতে পারবে। নতুনরা এসে প্রচলিত নিয়মের বাহিরে গিয়ে কাজ করে। আসুক না! তাতে দোষ কিসের? তারা রাজনীতিতে এসে ভালো কাজ করলে গ্রহণ করে নিবেন না হলে বর্জন করে দিবেন।

কিন্তু আগে থেকে যেটা করছি সেটা একটা বিকৃতকণ্ঠ। খেলা আমাদের একটি প্রাণ। আবেগের সাথে মিশে আছে।

মনে রাখবেন, আপনার উদ্ভট আচরণ আপনাকে প্রকাশ করে দেয়।

মিজানুর রহমান নোবেল, শিক্ষার্থী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।