ঢাকা-২

তৃণমূল চষে বেড়াচ্ছেন ‘নৌকার প্রার্থী’ শাহীন আহমেদ

নিজস্ব প্রতিবেদক, কেরাণীগঞ্জ »

পরিশ্রমী এবং তৃণমূলের রাজনীতিতে জনপ্রিয় প্রার্থীকেই আগামী সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন দেবে আওয়ামী লীগ— প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার মুখ থেকে এমন আভাস পেয়েই মাঠে-ময়দানে ছুটে বেড়াচ্ছেন কেরানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ।

দলের মনোনয়ন প্রত্যাশা করে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত কেরানীগঞ্জ, সাভার ও কামরাঙ্গীরচর চষে বেড়াচ্ছেন তিনি। মানুষের বাড়ি বাড়ি, দুয়ারে দুয়ারে গিয়ে আ’লীগের জয়গান গাইছেন, সরকারে উন্নয়ন তুলে ধরছেন এবং নৌকা প্রতীকে ভোট চাইছেন তিনি।

তারই ধারাবাহিকতায় ১২ মে শনিবার ঢাকা-২ আসনের নির্বাচনী এলাকা ভাকুর্তা ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে সারাদিন দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে গণসংযোগ চালান কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ।

এ সময় ঢাকা জেলা পরিষদ সদস্য সোহরাব হোসেন খোকন, হযরতপুর ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন আয়নাল, কলাতিয়া ইউপি চেয়ারম্যান তাহের আলী, শাক্তা ইউপি চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন লিটন, তারানগর ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন ফারুক, কালিন্দী ইউপি চেয়ারম্যান হাজী মো. মোজাম্মেল, রোহিতপুর ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আলী, বাস্তা ইউপি চেয়ারম্যান আশকর আলীসহ আ’লীগ ও অঙ্গসংগঠনের বহু নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া পবিত্র মাহে রমজানেও ঘরে বসে নেই শাহীন আহমেদ। নেতা-কর্মীদের ইফতার আয়োজনে শরীক হয়ে নৌকা প্রতীকে ভোট চাইছেন। নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোটের মাঠে বিরামহীন ছুটে চলা তার এখন প্রত্যাহিক অভ্যাসে পরিণত হয়েছে।

এরও অনেক আগে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকা-২ এ আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন শাহীন আহমেদ। এ সময় আমিন বাজার মদিনাতুল উলুম মাদ্রাসা মসজিদে জোহর নামাজ আদায় শেষে উপস্থিত মুসল্লীদের কাছে আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট প্রার্থনা করেন শাহীন আহমেদ।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ আর আগের বাংলাদেশ নেই। দেশ আজ উন্নয়নে ভাসছে। বাংলাদেশকে আজ সারা বিশ্বের সাথে নতুনভাবে পরিচিত করেছেন শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনা সরকার উন্নয়নের সরকার। তার কারণেই দেশের প্রতিটি সেক্টরে উন্নয়ন হয়েছে। তার এ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হলে শেখ হাসিনার সরকারকে আবার ক্ষমতায় আনতে হবে। কাজেই আবারো নৌকায় ভোট দিয়ে উন্নয়ন অব্যাহত রাখুন।

এ সময় স্থানীয় প্রায় ৭-৮টি মসজিদ-মাদ্রাসার প্রধানগণ, মুসল্লী-কেরাম, স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, কেরাণীগঞ্জ মডেল থানাধীন বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানগণ, থানা আওয়ামী লীগ-যুবলীগ ও ছাত্রলীগসহ অন্যান্য অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাহীন আহমেদ বলেন, ‘মূলধারার আওয়ামী নেতাকর্মীরা সকলেই আমার পাশে রয়েছে। আমাকে সমর্থন জানিয়েছেন। তারা আমাকে অভয় দিচ্ছেন এবং বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করছেন।’

তিনি বলেন, তরুণেরাই আগামীর বাংলাদেশ গড়ায় সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখবে। তাই তরুণদের সম্ভাবনা কাজে লাগানো উচিত মনে করেই আমি আমার দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করার চেষ্টা করি।

তিনি আরো বলে, আমি জনগনের নির্বাচিত প্রতিনিধি। আমার কাজ জনগনের সুবিধা-অসুবিধায় পাশে থাকা। স্থানীয় সরকারের উন্নয়ন কাজ সম্পাদন করা। আমি সেটাই করে যাচ্ছি।

আগামী নির্বাচনে নৌকার টিকিটে লড়াই করার আশাবাদ ব্যক্ত করে শাহীন আহমেদ বলেন, ‘আমার সমস্ত ভাবনাজুড়ে কেরানীগঞ্জের জনগন ও তাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন। আশা রাখি আগামী নির্বাচনে ঢাকা-২ আসন থেকে দলীয় মনোনয়ন পেলে জনগনের প্রত্যাশা পূরণে কাজ করতে পারবো।’

তিনি বলেন, আমি বরাবরই দলের প্রতি অনুগত থেকে কাজ করে যাচ্ছি। আমার নেত্রী শেখ হাসিনা যদি আমাকে নৌকা প্রতীক দেন, তবে তৃণমূল ও সাধারণ জনগণকে নিয়ে আমি জয়ী হতে পারবো ইনশআল্লাহ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।