গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন:

নারী কাউন্সিলর প্রার্থীদের ২০% স্নাতক

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে এবার সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকা ৮৪ জনের মধ্যে ৭১ শতাংশ অষ্টম শ্রেণি থেকে উচ্চ শিক্ষার বিভিন্ন পর্যায়ে শিক্ষিত বলে হলফনামায় জানিয়েছেন।

তাদের ২১ শতাংশ ব্যবসা করেন, চাকরি করেন প্রায় ১৭ শতাংশ। আর ৪২ শতাংশ প্রার্থী জানিয়েছেন, তারা গৃহিণী।

নির্বাচনী হলফনামায় দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদের ৮৪ জন প্রার্থীর মধ্যে ২৪ জন অষ্টম ও ২ জন দশম শ্রেণি পর্যন্ত পড়েছেন। ১০ জন এসএসসি ও ৭ জন এইচএসসি পাশ করেছেন।

প্রার্থীদের মধ্যে ৫ জন স্নাতক ও ৬ জন স্নাতকোত্তর করেছেন। স্নাতকদের মধ্যে ৬ জন প্রার্থীর আইনের ডিগ্রি (এলএলবি) আছে। অর্থাৎ মোট প্রার্থীর মধ্যে স্নাতক ডিগ্রিধারীর সংখ্যা ২০ শতাংশ।

পাঁচজন প্রার্থী হলফনামায় জানিয়েছেন, তাদের অক্ষরজ্ঞান আছে। আটজন বলেছেন, তারা ‘স্বশিক্ষিত’।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ১৫ মে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন হবে। মোট ৫৭টি ওয়ার্ডের এই সিটিতে ভোটার আছেন ১১ লাখ ৩৭ হাজার ১১২ জন।

নিয়ম অনুযায়ী, সিটি করপোরেশনে প্রতি তিন ওয়ার্ডে একজন করে নারী কাউন্সিলর থাকেন। এই হিসাবে গাজীপুরে সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডের সংখ্যা ১৯টি।

গাজীপুর সচেতন নাগরিক কমিটির (সনাক) সহ সভাপতি মুকুল কুমার মল্লিক বলেন, প্রার্থী হলফনামার বিস্তারিত তথ্য লিফলেট আকারে প্রকাশ করা উচিত, যাতে ভোটাররা তাদের যোগ্যতা দেখে ভোট দিতে পারেন।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।