খালেদা জিয়া মুক্তি পেলেই গণতন্ত্র মুক্তি পাবে : মোশাররফ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন,বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ছাড়া দেশে কোনো নির্বাচন হবে না।

আজ রোববার বিকেলে রাজশাহীতে বিভাগীয় সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। সমাবেশে দলীয় চেয়ারপারসনের মুক্তির দাবিতে গণআন্দোলনে অংশ নিতে রাজশাহীবাসীকে প্রস্তুত থাকারও আহ্বান জানান তিনি।

সমাবেশে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের প্রধান অতিথি থাকার কথা থাকলেও মায়ের মৃত্যুর কারণে তিনি অংশ নিতে পারেননি। সমাবেশ থেকে মরহুমার আত্মার মাগফিরাত কামনা করা হয়।

তিনি বলেন, বিএনপির সব শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিক কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে সরকার। বিএনপির জনপ্রিয়তায় ভয় পেয়ে এমন ফ্যাসিবাদী আচরণ করছে তারা। জায়গা না দিয়ে তারা রাজশাহীতে বিএনপির সমাবেশও বাধাগ্রস্ত করতে চেয়েছিল।

খন্দকার মোশাররফ আরো বলেন, খালেদা জিয়া মুক্তি পেলেই গণতন্ত্র মুক্তি পাবে। নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগকে জনগণ আস্তাকুঁড়ে নিক্ষেপ করবে। সেটিই শেখ হাসিনার বড় ভয়। আর তাই বেগম জিয়াকে কারাবন্দি রেখে, ২০ দল ও বিএনপি নেতাদের বাইরে রেখে আরেকটি প্রহসনের নির্বাচন করতে চায় সরকার। বিএনপি ছাড়া আগামীতে এদেশে কোনো অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হতে পারে না।

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও নগর বিএনপির সভাপতি মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, বরকত উল্লাহ বুলু, ব্যারিস্টার আমিনুল হক, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু, জয়নুল আবদিন ফারুক, হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, কর্নেল (অব.) এম এ লতিফ, যুগ্ম-মহাসচিব হারুন অর রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকত খালেক প্রমুখ।

নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন সমাবেশ পরিচালনা করেন। সমাবেশে বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।