স্যামসনের ব্যাটে রান উৎসব করে জিতল রাজস্থান

টানা দ্বিতীয় জয় পেল রাজস্থান রয়্যালস। আগের ম্যাচে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসকে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে হারানোর পর রবিবার চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে রান উৎসব করল তারা। তাদের করা ২১৭ রানের বিশাল পাহাড়ে চড়তে ব্যর্থ হয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। রাজস্থান ম্যাচটি জিতেছে ১৯ রানে।

বেঙ্গালুরু অধিনায়ক বিরাট কোহলি টস জিতে ফিল্ডিং নেন। কিন্তু সানজু স্যামসনের অনবদ্য এক ইনিংসের কাছে হার মানে তার এই সিদ্ধান্ত। রাজস্থানকে ৪ উইকেটে ২১৭ রান এনে দিতে ম্যাচসেরা স্যামসন খেলেছেন ৪৫ বলে ৯২ রানের অপরাজিত ইনিংস। মাত্র ২টি চার ছিল তার ইনিংসে, কিন্তু ছয় ছিল ১০টি। জবাবে ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৯৮ রান করে বেঙ্গালুরু।

ডি’আরচি শর্ট ও আজিঙ্কা রাহানের ৪৯ রানের উদ্বোধনী জুটিতে ভালো শুরু করেছিল রাজস্থান। কিন্তু ৫৩ রানের মধ্যে ২ উইকেট চলে গেলেও ছন্দপতন হয়নি স্যামসনের কারণে। বেন স্টোকসের সঙ্গে ৪৯ ও জশ বাটলারকে নিয়ে ৭৩ রানের দুটি জুটিতে বিশাল স্কোরের আভাস দেন রাজস্থানের ২৩ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান।

রাহুল ত্রিপাতির সঙ্গে স্যামসনের অপরাজিত জুটিটি ছিল ৪২ রানের। রাহানে দ্বিতীয় সেরা ৩৬ রান করেন। স্টোকস ২৭ ও বাটলার করেন ২৩ রান।

যুজবেন্দ্র চাহাল ও ক্রিস ওকস দুটি করে উইকেট নেন বেঙ্গালুরুর পক্ষে।

বিশাল লক্ষ্যে নেমে চতুর্থ বলে ব্রেন্ডন ম্যাককালামকে হারায় বেঙ্গালুরু। কিন্তু কুইন্টন ডি কককে নিয়ে কোহলির ৭৭ রানের ঝড়ো জুটি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয় রাজস্থানকে। ডি কক ২৬ রানে ফিরে গেলে ছন্দপতন হয়। যদিও কোহলি এককভাবে চেষ্টা করেছেন আরও। ৩০ বলে ৭ চার ও ২ ছয়ে বেঙ্গালুরুর অধিনায়ক আউট হলে শেষ দিকে মনদীপ সিং ও ওয়াশিংটন সুন্দর লড়াই চালিয়ে গেছেন।

অবশ্য তাদের ৫৬ রানের জুটি খুব বড় বাধা হতে পারেনি রাজস্থানের জয়ে। ১৯ বলে ৩৫ রানে ওয়াশিংটনকে আউট করে তাদের বিচ্ছিন্ন করেন স্টোকস। ২৫ বলে ৬ চার ও ১ ছয়ে ৪৭ রানে অপরাজিত ছিলেন মনদীপ।

শ্রেয়াস গোপাল রাজস্থানের পক্ষে সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন।

তিন ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তিন নম্বরে উঠেছে রাজস্থান। আর সমান খেলে মাত্র ১ জয়ে ২ পয়েন্টে ৬ নম্বরে কোহলিরা।

ক্রিকইনফো

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।