‘মিথ্যা মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়া হয়েছে’

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, ‘নির্বাচনে কারচুপি প্রতিরোধের জন্য অপেক্ষায় আছি আমরা। ইদানীং আমরা যে কর্মসূচি পালন করছি তাতে নতুন করে আমরা অহিংসাবাদে দীক্ষা নিয়েছি।’

তিনি বলেন, তার মানে চিরকাল আমরা বসে বসে তাকিয়ে তাকিয়ে দেখব না। আমরা অপেক্ষায় আছি কবে আওয়ামী লীগের শুভবুদ্ধির উদয় হয়।

সোমবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দণ্ডাদেশ বাতিলের দাবিতে প্রতিবাদ সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল।

বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘যদি তারা দেশনেত্রীকে মুক্তি না দেন, যেটি তার প্রাপ্য, এবং এ কারচুপির নির্বাচন করার জন্যে সুজাতা সিংদের পরামর্শ নিয়ে আবারও ব্লুপ্রিন্ট বাস্তবায়নে এগিয়ে যান, তাহলে আমরা এ গান্দিবাদী রাজনীতি করব না। বাংলাদেশের মানুষদের সঙ্গে নিয়ে যা করা দরকার তা বিএনপি করবে।’

হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘একটি মিথ্য মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়া হয়েছে। ব্যাংকে টাকাতো সব আছে, তাহলে চুরিটা হলো কোথায়? তবে কি বিচারবিভাগ বোঝে না এসব? আমরা সবাই জানি, বিজ্ঞ ব্যক্তিরা বলে থাকেন, আমাদের নিম্ন আদালত স্বাধীন নয়। এটি ক্ষমতাসীন দলের অঙ্গুলি হেলনে পরিচালিত হয়ে থাকে।’

তিনি আরও বলেন, ‘খালেদা জিয়া আজকে জেলে, অসুবিধা নাই, জেলে থাকা উচিত, মাঝে মধ্যে রাজনীতিবিদরা জেলে গেলে চিন্তা-ভাবনা করা, আত্ম-উপলব্ধি করার সময় পান। নতুনভাবে জীবন শুরু করার জন্য সময় পান। আমরা সবাই জানি মুক্ত খালেদা জিয়ার চেয়ে বন্দি খালেদা জিয়া আরও শক্তিশালী।

জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাতের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন বিশেষ অতিথি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক, অ্যাডভোকেট শিরিন সুলতানা প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।