জরুরি অবস্থা আরও ১৫ দিন জারি রাখতে চান মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট

মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লা ইয়ামিন দেশটিতে চলমান জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরও ১৫দিন বাড়াতে চান। সোমবার এ জন্য তিনি দেশটির পার্লামেন্টের কাছে অনুমোদন চেয়েছেন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

পার্লামেন্টের ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল ফাতমাথ নিউশা দেশটির আইনপ্রণেতাদের জানান, পরিস্থিতির এখনও পরিবর্তন হয়নি।

 ৬ ফেব্রুয়ারি ১৫ দিনের জন্য জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দেন আব্দুল্লা ইয়ামেন। মঙ্গলবার এই জরুরি অবস্থার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এর মধ্যে মেয়াদ আরও ১৫ দিন বাড়ানোর জন্য পার্লামেন্টের অনুমোদন চাইলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট।

সর্বোচ্চ আদালতের দেওয়া একটি ঐতিহাসিক আদেশকে কেন্দ্র করে মালদ্বীপে রাজনৈতিক সংকট ঘনীভূত হয়।  জরুরি অবস্থা জারির পর গ্রেফতার হন প্রধান বিচারপতি আব্দুল্লাহ সাঈদ ও বিচারপতি আলি হামিদ। শুরু থেকেই সংকট নিরসনের ব্যাপারে ভারতের হস্তক্ষেপ চেয়ে আসছে মালদ্বীপের সুপ্রিম কোর্ট।

মালদ্বীপের বর্তমান প্রেসিডেন্ট ইয়ামিন চীন ও সৌদি আরবের ঘনিষ্ঠ। দুই দেশই মালদ্বীপে প্রচুর বিনিয়োগ করেছে। গুরুত্বপূর্ণ শিপিং লেনগুলোর নিকটে অবস্থানের কারণে চীনের কাছে মালদ্বীপের অনেক গুরুত্ব রয়েছে। অন্যদিকে মালদ্বীপে চীনের ক্রমবর্ধমান প্রভাব ঠেকাতে চায় ভারত।

ভারত এক বিবৃতিতে সুপ্রিম কোর্টের আদেশ মানতে মালদ্বীপ সরকারের অস্বীকৃতিকে ‘বিরক্তিকর’ বলে উল্লেখ করে। আর চীনের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে সতর্ক করে বলা হয়, মালদ্বীপের অভ্যন্তরীণ পরিস্থিতিতে বহির্বিশ্ব হস্তক্ষেপ করলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে।

 রয়টার্স 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।